বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০২:০৮ অপরাহ্ন

শুভ্র পাথরে নতুন রূপে সেজেছে জাফলং

  • আপডেট সময় রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১

মেঘালয়ের পাহাড়ের বুক চিড়ে বয়ে চলছে ঝর্ণা আর নদীর বুকে স্তরে স্তরে সাজানো নানা রঙের সাদা নুড়ি পাথর। পাহাড়ের গায়ে নরম তুলোর মতো ভেসে বেড়াচ্ছে মেঘরাশি। প্রকৃতির এমন অপরূপ সৌন্দর্যের দেখা মিলছে প্রকৃতিকন্যা জাফলংয়ে।

এ মৌসুমে পাঁচবারের পাহাড়ি ঢলের সুবাদে জাফলংয়ে সাদা পাথরের আরেক ‘বিছানা’ তৈরি হয়েছে। প্রকৃতিকন্যা জাফলংয়ে এ যেন সাদা পাথরের সুবিশাল এক বিছানা। একসঙ্গে এমন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দেখা পাওয়া যায় শুধু সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলংয়ে। দুই পাহাড়ের মাঝখানে ঝুলন্ত সেতু বাড়িয়ে দিয়েছে জাফলংয়ের সৌন্দর্য। পাহাড়, পানি, পাথর, ঝর্ণা মিলিয়ে এ যেন এক রূপকথার রাজ্য।

গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি ও কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জের (সাদা পাথর) পরে এবার সাদা পাথরের এলাকা হিসেবে নতুন রূপে পর্যটকদের কাছে আকর্ষনীয় হয়ে উঠছে প্রকৃতিকন্যা জাফলং। জাফলংয়ের জিরো পয়েন্ট আর মায়াবী ঝর্ণার পাশাপাশি আরেক আকর্ষণ এখন সাদা পাথরের এলাকা।

ঢাকা থেকে বেড়াতে আসা এক পর্যটক বলেন, ‘আমি পরিবার নিয়ে প্রতিবছর জাফলংয়ে বেরাতে আসি। আগে শুধু ঘুরে বেড়াতাম জিরো পয়েন্ট, ঝর্ণা,
জমিদারবাড়ি আর চা-বাগানে। এখন তো দেখছি নতুন করে সাদা পাথর। অতীতের চেয়ে জাফলং এখন অনেক সুন্দর হয়েছে। আমরা সাদা পাথর দেখার জন্য ভোলাগঞ্জে যেতাম। এখন জাফলংয়ের জিরো পয়েন্ট এলাকায়ও সাদা পাথর আছে।’

জাফলং ভিউ পর্যটন ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ওমর সানী বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী মহামারির পর সৃষ্টিকর্তা নিজ হাতে যেন সাজিয়েছেন প্রকৃতিকন্যা জাফলংকে। জাফলংয়ের জিরো পয়েন্টে নতুন রূপে জেগে উঠেছে সাদা পাথরের মাধ্যমে। খাসিয়াপল্লী, মায়াবী ঝর্ণার পাশাপাশি পর্যটকদের কাছে আরেক আকর্ষন এখন সাদা পাথর। জাফলংয়ে মন খুলে ভ্রমণ করতে পারবেন পর্যটকরা।

জাফলং ট্যুরিস্ট পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রতন শেখ বলেন, ‘কয়েকদফা বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে ভারত থেকে আসা নুড়ি সাদা পাথর নতুন রূপে সাজিয়েছে প্রকৃতিকন্যা জাফলংকে। পর্যটকরা এখন মন খুলে বেড়াতে পারেন জাফলংয়ের সাদা পাথরে। ভোলাগঞ্জ ও বিছনাকান্দির পর এবার নতুন রূপে জাফলংয়েও সাদা পাথরের বিছানা হয়েছে। আমরা ট্যুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে সবসময় পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ নিয়োজিত রাখছি।’

গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুস সাকিব বলেন, ‘প্রকৃতিকন্যা জাফলং এমনিতে সবার কাছে পরিচিতি। সিলেটের অন্যান্য পর্যটন স্পটগুলোর থেকে আলাদা জাফলং। এখানে এক সঙ্গে অনেকগুলো স্পট আছে যেগুলো ভ্রমণ করে আনন্দ পান পর্যটকরা। তার সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে সাদা পাথর। জাফলংয়ে আসা পর্যটকদের আর কষ্ট করে ভোলাগঞ্জে সাদা পাথর দেখতে যেতে হবে না। জাফলংয়ে এখন সাদা পাথরের বিছানা তৈরি হয়েছে। প্রকৃতিকন্যা জাফলংয়ের জিরো পয়েন্ট, খাসিয়াপল্লী, চা-বাগান, মায়াবী ঝর্ণার সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে সাদা পাথর।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com