রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

চিলি

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১

চিলি দক্ষিণ আমেরিকার দক্ষিণ-পশ্চিম অংশের একটি দেশ। দেশটি প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূল ঘেঁষে একটি লম্বা ফিতার মত প্রসারিত ভূখণ্ড। পূর্বে আন্দেস পর্বতমালা আর্জেন্টিনার সাথে সীমান্ত তৈরি করেছে। দেশটির উত্তরে পেরু এবং উত্তর পূর্ব দিকে বলিভিয়ার সীমান্ত অবস্থিত। এবং দেশটির পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর অবস্থিত।

উত্তরের ঊষর মরুভূমি থেকে শুরু করে দক্ষিণের ঝঞ্ঝাপীড়িত হিমবাহ ও ফিয়র্ডসমূহ চিলির ভূ-দৃশ্যাবলির বৈচিত্র‌্যের স্বাক্ষর বহন করছে। অবকাঠামোর দিক দিয়ে চিলি যে কোন ইউরোপীয় শহরের মতই এবং ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মতো অর্থনৈতিক জোয়ারে ভাসছে।

তাহলে বন্ধুরা চলুন চিলি সম্পর্কে আরো কিছু জানা-অজানা এবং প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

১। চিলি ১৬শ শতক থেকে স্পেনের একটি উপনিবেশ ছিল। ১৯শ শতকের শুরুর দিকে এটি স্বাধীনতা লাভ করে। গোটা ১৯শ শতক ধরে রপ্তানির মাধ্যমে এটি সমৃদ্ধি লাভ করে, কিন্তু এতে মূলত জমিদার এবং উচ্চ শ্রেণীর লোকেরাই লাভবান হন। এখনও চিলিতে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য প্রকট।

১৯৭৩ সাল পর্যন্ত চিলিতে কোন সামরিক কু ঘটেনি, যা ছিল লাতিন আমেরিকার অন্যান্য দেশগুলির তুলনায় ব্যতিক্রম। ১৯৭৩ সালে এক সামরিক জান্তা ক্ষমতা দখন করে এবং ১৯৮৯ সালে গণতান্ত্রিক নির্বাচনের আগ পর্যন্ত চিলি শাসন করে। ২১শ শতকের শুরুতে এসেও চিলি সামরিক শাসনের দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব কাটিয়ে ওঠার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

২। ৭ লাখ ৫৬ হাজার ৯৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই দেশটিতে প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষের বসবাস।

৩। দেশটির সরকারী ভাষা স্প্যানিশ। তবে দেশটিতে ইংরেজি ভাষাও ব্যাপকভাবে প্রচলিত।

৪। চিলির অধিকাংশ মানুষ রোমান ক্যাথলিক ধর্মের অর্থাৎ খ্রিস্টধর্মের অনুসারী। দেশটির প্রায় ৫৬ শতাংশ মানুষ এই ধর্মে বিশ্বাসী।

৫। চিলির রাজধানী এবং সবচেয়ে বড় শহর হচ্ছে সান্তিয়াগো। শহরটি গোটা আমেরিকা মহাদেশের বৃহত্তম শহরগুলির মধ্যে অন্যতম। ৬৪১ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই শহরতিতে প্রায় ৭০ লাখ মানুষের বসবাস।

৬। চিলিতে মহাসাগরীয় জলবায়ু থেকে শুরু করে মরুভূমির উষ্ণ জলবায়ু বিদ্যমান। দেশটিতে মোট ৪টি ঋতু দেখতে পাওয়া যায়। এগুলো হলঃ গ্রীষ্ম (ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি), শরৎ (মার্চ থেকে মে), শীতকাল (জুন থেকে আগস্ট), এবং বসন্ত (সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর)।

৭। চিলির বর্তমান জনসংখ্যার সিংহভাগ মানুষের বয়স ৫৫ বছরের বেশি। সেইজন্যই চিলির সমাজকে “বয়স্ক সমাজ”ও বলা হয়ে থাকে।

৮। চিলির রাজধানী সান্তিয়াগোতেও দক্ষিণ আমেরিকার সবচেয়ে উঁচু ভবনটি অবস্থিত। ভবনটির নাম হচ্ছে গ্রান তোরে এবং এর উচ্চতা ৩০০ মিটার। ভবনটিতে মোট ৬২ টি ফ্লোর রয়েছে।

৯। চিলির জাতীয় পতাকাটি ১৮১৭ সালে গৃহীত হয়েছিল এবং এটি যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস রাজ্যের পতাকার অনুরূপ।

১০। “এন্ডিয়েন কন্ডর” চিলির জাতীয় পাখি এবং এটিই বিশ্বের বৃহত্তম উড়ন্ত পাখি।

১১। চিলির স্বাধীনতা দিবসে, দেশটির প্রত্যেকটি পাবলিক ভবনে দেশটির জাতীয় পতাকা টাঙানো বাধ্যতামূলক। অন্যথায়, ভবনটির মালিককে ৪০ হাজার চিলিয়ান পেসো জরিমানা গুনতে হবে।

১২। চিলি দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে স্থিতিশীল এবং সমৃদ্ধ। এর কারন অবশ্যয় দেশটির উঁচু মাত্রার জীবনযাপন। আসলে সব দিক দিয়েই চিলি প্রথম বিশ্বের একটি দেশ।

১৩। ১৯৬২ ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ ছিল এই চিলি। এবং সেই বিশ্বকাপে দেশটি ৩য় স্থান দখল করে।

১৪। দেশটির সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা হচ্ছে এই ফুটবল।

১৫। তবে দেশটিতে সবচেয়ে সফল খেলা হচ্ছে টেনিস এবং চিলির জাতীয় দল ২০০৩ এবং ২০০৪ সালে বিশ্ব টিম কাপ জিতেছে।

১৬। ২০০৫ সাল পর্যন্ত তালাক বৈধ না হওয়ার কারণে চিলিতে বিবাহবিচ্ছেদের হার বিশ্বের মধ্যে সর্বনিম্ন।

১৭। এটি পৃথিবীর একমাত্র দেশ যেখানে গর্ভপাত অবৈধ এবং সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ।

১৮। চিলিতে এখন পর্যন্ত মোট ২৮২ টি মমি পাওয়া গেছে এবং বিশ্বের প্রাচীনতম মমিও আছে এই দেশটিতেই। যেটি খ্রিস্টপূর্ব ৫০৫০ সালে ক্যামেরোন ভ্যালিতে রাখা হয়েছিল।

১৯। ১৯০০ সালের পর থেকে পৃথিবীতে রেকর্ড করা সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প চিলিতে ঘটে এবং এটি “ভালদিভিয়া ভূমিকম্প” নামে পরিচিত। “ভালদিভিয়া ভূমিকম্প”টি ১৯৬০ সালে ঘটে এবং রিক্টার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৯.৫।

২০। চিলিতে অবস্থিত আন্দেস পর্বতমালার দিকে প্রায় ৩ ডজন সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে।

২১। চিলিতে অবস্থিত আটাকামা মরুভূমি পৃথিবীর সবচেয়ে শুষ্ক জায়গা হিসাবে পরিচিত, কারণ এখানে বছরে মাত্র ০.৬ ইঞ্চি পরিমান বৃষ্টিপাত হয় এবং মরুভূমির কিছু অংশে পৃথিবীর ইতিহাসেই কখনো বৃষ্টি হয়নি।

২২। গত ৪০ বছর যাবত আটাকামা মরুভূমিতে বৃষ্টিপাত হয়নি।

২৩। এই দেশটিতেই ৪০০০ বছর বয়সী গাছের প্রজাতি পাওয়া যায়।

২৪। বিশ্বের এটিই একমাত্র দেশ যেখানে সরকার সমর্থিত ইউএফও অর্থাৎ এলিয়েন গবেষণা প্রতিষ্ঠান আছে।

২৫। চিলি তামার অন্যতম বৃহত্তম উৎপাদক এবং বিশ্বব্যাপী তামার এক তৃতীয়াংশ উৎপাদিত হয় চিলিতেই।

২৬। এটি একইসাথে স্যামন মাছের বৃহত্তম রপ্তানিকারক।

২৭। চিলির সবচেয়ে বিখ্যাত ও সুপরিচিত দ্বীপগুলির মধ্যে একটি হল ‘ইস্টার দ্বীপ’। এটি ১৭৭২ খ্রিস্টাব্দে ডাচম্যান দ্বারা আবিষ্কৃত হয় এবং এটি এর ৮৬৭ টি মোয়া মূর্তির জন্য বিখ্যাত।

২৮। দক্ষিণ আমেরিকার বৃহত্তম লাইব্রেরি রয়েছে এই দেশটিতে। এবং এই লাইব্রেরিতে প্রায় ১৮ লাখ বই রয়েছে।

২৯। পৃথিবীর ক্ষুদ্রতম হরিণ পুডুর দেখা মেলে চিলির রেইনফরেস্টে। তবে এদের দেখা পাওয়া খুবই দুষ্কর।

৩০। চিলিতে অবস্থিত প্যাটাগনিয়া, বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার স্থান বলে পরিচিত।

৩১। আপনি এখানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুইমিং পুলও পাবেন যার দৈর্ঘ্য ১০০০ গজ, এটি ২০ একর এলাকা জুড়ে বিসৃত এবং এর সর্বোচ্চ গভিরতা ১১৫ ফুট। এই পুলটি ৬৬ মিলিয়ন গ্যালন সমুদ্রের পানি ধারণ করতে পারে। ২০০৬ সালের ডিসেম্বরে এটি গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের তালিকায় তালিকাভুক্ত হয়েছিল।

৩২। চিলির সরকারী মুদ্রা পেসো।

৩৩। ২০১৯ সালের এক হিসাবে দেশটির মোট জিডিপি $৩০৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এবং মাথাপিছু আয় প্রায় ১৬ হাজার মার্কিন ডলার।

৩৪। চিলির ডায়ালিং কোড হচ্ছে +৫৬।

দক্ষিণ আমেরিকার একটি নেতৃস্থানীয় শিল্পোন্নত দেশ। এর অর্থনীতি খনন শিল্প ও কৃষিভিত্তিক। চিলি বিশ্বের বৃহত্তম তামা উৎপাদক ও রপ্তানিকারক। এছাড়াও দেশটি ফলমূল ও শাকসবজির বড় রপ্তানিকারক। চিলির ওয়াইন অনেক দেশে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এছাড়াও দেশটি পৃথিবীর অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র। প্রতি বছর লাখ লাখ মানুষ ছুটে যায় দেশটির অপরূপ রুপসুধা পান করতে।

খালিদ হাসান

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com