রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

১৮-২৫ বছর বয়সী মেধাবী বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্রে পড়ার সুযোগ

  • আপডেট সময় শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
A group of young focused joyful students studying, explaining each other and writing notes in a notebook while sitting on a floor in front of a library bookshelf. (A group of young focused joyful students studying, explaining each other and writing no

১৮ থেকে ২৫ বছর বয়সী বাংলাদেশি মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনার দারুণ সুযোগ এসেছে। কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একাগ্রচিত্ত, অনভিজাত বা সুবিধাবঞ্চিত স্নাতকপূর্ব শিক্ষার্থী, যারা শিক্ষা কার্যক্রম, সামাজিক সম্পৃক্ততা ও পাঠ্যক্রম-বহির্ভূত কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নেতৃত্ব প্রদর্শন করেছেন, সেই সঙ্গে মেধাবী এমন শিক্ষার্থীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবছরে চার মাসের বৃত্তি ঘোষণা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে এই কর্মসূচির আবেদন গ্রহণ করা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের যারা যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে কখনো বসবাস করেননি বা ইমিগ্র্যান্ট নন কিংবা সেখানকার নাগরিক নন, এমন শিক্ষার্থীরা এই প্রোগ্রামে সুযোগ পাবেন। ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস ২০২১-২২ গ্লোবাল ইউগ্র্যাড এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের জন্য আবেদন গ্রহণ করতে শুরু করেছে। আগ্রহীরা ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ দিন পর্যন্ত আবেদন জমা দিতে পারবেন। ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস জানিয়েছে, আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের আমেরিকান সেন্টার গ্লোবাল ইউগ্র্যাড এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের ঘোষণা দিতে পেরে আনন্দিত। এক সেমিস্টার মেয়াদি স্নাতক-পূর্ব এই ডিগ্রিবিহীন বিনিময় কার্যক্রমটি যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের ব্যুরো অব এডুকেশনাল অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্সের পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত হয়।

এই প্রোগ্রামের লক্ষ্য সম্পর্কে বলা হয়েছে, গ্লোবাল ইউগ্র্যাড একটি নিবিড় শিক্ষা কার্যক্রম, যার লক্ষ্য হলো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবহারিক শিক্ষা বিনিময় কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে স্নাতক-পূর্ব শিক্ষার্থী নেতাদের যুক্তরাষ্ট্রের সমাজ, সংস্কৃতি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিবিড় সংস্পর্শে আসার সুযোগ দেওয়া। এই কার্যক্রমের আওতায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীদের স্নাতক-পূর্ব ডিগ্রিবিহীন পর্যায়ে অধ্যয়নের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ২০২০ সালের শরৎ (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) অথবা ২০২১ সালের বসন্ত (জানুয়ারি-এপ্রিল) সেমিস্টারের জন্য পূর্ণ বৃত্তি প্রদান করা হবে। কম প্রতিনিধিত্বকারী ও সুবিধাবঞ্চিত আবেদনকারীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। যেকোনো শিক্ষা বিষয়ে অধ্যয়নকারীরাই এর জন্য যোগ্য হবেন। আবেদনকারীদের আগ্রহ, প্রাপ্যতা এবং সেই সাথে ভর্তির সুযোগ ও তহবিল সংস্থানের ভিত্তিতে এক সেমিস্টারের (প্রায় ৪ মাস) জন্য এই বৃত্তি প্রদান করা হবে।

আরো বলা হয়েছে, গ্লোবাল ইউগ্র্যাডের আবেদনকারীদেরকে আমন্ত্রণকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিদ্যমান পাঠ্যক্রম থেকে বাছাইকৃত স্নাতক-পূর্ব কোর্সের কাজের জন্য পূর্ণকালীনভাবে ভর্তি করা হবে। এর উদ্দেশ্য হলো শিক্ষার্থীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে বাস্তবিক আদান-প্রদান এবং যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শ্রেণিকক্ষের সংস্কৃতির সংস্পর্শে আসার পর্যাপ্ত সুযোগ সৃষ্টি করা। তা ছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নতুন পরিবেশে শিক্ষার্থীদের সফলতা নিশ্চিত করতে সহায়তার জন্য আমন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রাতিষ্ঠানিক গবেষণা ও রচনা, বিশ্লেষণী চিন্তা-ভাবনা, সময় ব্যবস্থাপনা, তথ্য গ্রহণ এবং অধ্যয়ন ও পরীক্ষা দেওয়ার বিষয়ে যথোপযুক্ত পাঠদান করবে। অংশগ্রহণকারীরা আমেরিকান সহপাঠীদের সাথে ক্যাম্পাসে অবস্থান করবে।

এই বৃত্তির আবেদনের জন্য যোগ্য বিবেচিত হতে আগ্রহী প্রার্থীদের অবশ্যই অনধিক ২৫ বছর বয়সী (ন্যূনতম ১৮ বছর) বাংলাদেশি নাগরিক হতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র বা অন্য কোনো দেশের দ্বৈত নাগরিক বা স্থায়ী অভিবাসী হতে পারবেন না। বর্তমানে পূর্ণকালীন স্নাতক-পূর্ব শিক্ষার্থী হিসেবে ভর্তি থাকতে হবে এবং কমপক্ষে এক সেমিস্টার সম্পন্ন অথবা নিজ প্রতিষ্ঠানে ফিরে আসার পর এক সেমিস্টার বাকি থাকতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে অধ্যয়নে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য ইংরেজিতে লেখা ও কথা বলার ক্ষেত্রে যথাযথ দক্ষতা থাকতে হবে। নেতৃত্বদানের দক্ষতার প্রমাণ থাকতে হবে। কার্যক্রম শেষে বাংলাদেশে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে আসার অঙ্গীকার থাকতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রে থাকার পূর্ব অভিজ্ঞতা সামান্য বা নেই এমন হতে হবে। নিবিড় শিক্ষা কার্যক্রম এবং সমাজসেবায় পুরোপুরি অংশগ্রহণে আগ্রহী ও সক্ষম হতে হবে। আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের সাথে মানিয়ে নিয়ে এতে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। বৈচিত্র্যময় প্রেক্ষাপট, ধর্ম ও গোত্র থেকে আসা আমেরিকানদের সাথে জায়গা ভাগাভাগি করে থাকার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে এবং বাংলাদেশ থেকে ভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক রীতির সাথে মানিয়ে নিতে সক্ষম হতে হবে।

আবেদন প্যাকেজের মধ্যে বিভিন্ন নথি থাকতে হবে। তারা বলছে, একটি পূর্ণ আবেদন প্যাকেজের মধ্যে ৩টি জিনিস থাকতে হবে : পূরণকৃত ও স্বাক্ষরিত একটি আবেদন ফরম যার সাথে থাকবে নিম্নোক্ত সহায়ক নথিপত্র : আবেদনের প্রথম পাতায় সংযুক্ত একটি পাসপোর্ট আকৃতির ছবি। পাসপোর্টের উপাত্ত/ছবি সংযুক্ত পাতার কপি। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালীন প্রতিবছরের দাপ্তরিক নম্বরপত্র, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রত্যয়িত অনুবাদসহ। জাতীয় সাধারণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমাপনী পরীক্ষার দাপ্তরিক ফলাফল (এসএসসি/এইচএসসি/বিশ্ববিদ্যালয়ের নম্বরপত্র), ব্যক্তিগত রচনা (৫০০ শব্দের মধ্যে) এবং অনলাইন ফরমে অন্তর্ভুক্ত প্রশ্নের লিখিত উত্তর (৪০০-৬০০ শব্দের মধ্যে)। অধ্যাপক বা শিক্ষকদের কাছ থেকে দুটি সুপারিশপত্র।
আবেদন অনলাইনে করতে হবে।

প্রার্থী বাছাই ও সাক্ষাৎকারের বিষয়ে বলা হয়েছে, সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত প্রার্থীদের আমেরিকান সেন্টারে সাক্ষাৎকারের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে। অতিরিক্ত কিছু শর্তও রয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, এই কার্যক্রমের জন্য আমেরিকান সেন্টার কর্তৃক মনোনীত প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং সেই সাথে ইংরেজি ভাষার দক্ষতা পরীক্ষা ৬.০ থাকলে আবেদনের সাথে পেশ করতে হবে। চূড়ান্ত অনুমোদনের ব্যাপারে বলা হয়েছে, প্রার্থীদের মনোনয়ন আমেরিকান সেন্টার কর্তৃক করা হলেও কার্যক্রমে অংশগ্রহণের বিষয়টি ওয়াশিংটন ডিসি থেকে চূড়ান্ত অনুমোদন ও তহবিল প্রাপ্যতার ওপর নির্ভরশীল। আরো তথ্যের জন্য আমেরিকান সেন্টারে মিজ তাহনিয়া শাহিদের সাথে যোগাযোগ করার কথাও বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com