হানিমুনে কোথায় যাবেন

বিয়ের পর প্রিয় মানুষটিকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার ইচ্ছা সবারই আছে। ইংরেজিতে যাকে আমরা বলি ‘হানিমুন’। বাংলায় যাকে বলা হয় ‘মধুচন্দ্রিমা’। কিন্তু মধুচন্দ্রিমায় কোথায় ঘুরতে যাবেন এ নিয়ে পড়তে হয় নানাবিধ ঝামেলায়। কোথায় যাবেন? দেশে নাকি দেশের বাইরে? পুরোটাই নির্ভর করে সামর্থের ওপর।

যদি সামর্থ থাকে ঘুরে আসুন বিদেশ থেকে। ঘুরতে পারেন এশিয়ার মধ্যেই। এমন পাঁচটি দেশের কথাই জানাচ্ছি আজ-

শ্রীলঙ্কা
srilanka

ভারতের দক্ষিণ উপকূলে অবস্থিত শ্রীলঙ্কা এশিয়ার অন্যতম হানিমুন স্পট। অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর সমুদ্রসৈকত, সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য পর্যটকদের মুগ্ধ করে। প্রাচীনকাল থেকেই শ্রীলঙ্কা বৌদ্ধ ধর্মাম্বলীদের তীর্থস্থান। এখানে রয়েছে সুন্দর সুন্দর মন্দির। কম খরচে ঘুরে আসতে পারেন এই সুন্দর দেশ থেকে।

মালয়েশিয়া
malaysia
এশিয়ার অপূর্ব শোভামণ্ডিত ছোট্ট একটি দ্বীপরাষ্ট্র মালয়েশিয়া। সমস্ত দেশজুড়ে রয়েছে বিস্তৃত পাহাড়। পাহাড়ের কোলঘেঁষে গড়ে উঠেছে আধুনিক শহর। সবুজ পাহাড়ঘেরা পরিষ্কার একটি শহর মালয়েশিয়া। না শীত না গরম- সব মিলিয়ে চমৎকার একটা আবহাওয়ায় বিদ্যমান মালশিয়ায়। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, ঐতিহ্য এবং প্রাচুর্যে ভরা শহর মালয়েশিয়ার পেনাং। ‘প্রাচ্যের মুক্তা’ হিসেবে পরিচিত পেনাং এশিয়ার বিখ্যাত দ্বীপ। যেখানে প্রচুর রেস্তোরাঁ, ক্যাফে, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর এবং অকৃত্রিম সমুদ্রসৈকত রয়েছে।

থাইল্যান্ড
Thailand

এশিয়ার মধ্যে বিশ্বসেরা হানিমুন স্পটের প্রথম সারিতে আছে থাইল্যান্ডের নাম। এশিয়ার অন্যতম রোমান্টিক সমুদ্রসৈকত ‘পাতায়া’ থাইল্যান্ডে অবস্থিত। যেখানে রাতের গভীরতার সঙ্গে সঙ্গে বেড়ে যায় আলোর ঝলকানি। তালে তালে চলে সংগীতের মূর্ছনা। পাতায়ায় আছে অসংখ্য কোরাল দ্বীপ। এর একটি দ্বীপ কোলহার্ন। চারদিকে অসীম জলরাশির মধ্যদিয়ে ছুটে চলে স্ক্রুবা ড্রাইভ, সার্ফিং এবং ফিশিং।

বালি দ্বীপ
bali

হানিমুনের জন্য ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপ অন্যতম। এশিয়ার হানিমুন স্পট হিসেবে এটি জনপ্রিয়। সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ছবির মতো দেখতে দ্বীপটি। আপনি চাইলে সম্পূর্ণ একটা বিচ ভাড়া করে নিতে পারেন। এখানে রয়েছে অনেক দৃষ্টিনন্দন মন্দির। বালির বিশ্ববিখ্যাত কুটা সমুদ্রসৈকত না দেখলে বালি দেখাই বৃথা। কুটা সমুদ্রসৈকতের পানির রঙ গাঢ় নীল।

মালদ্বীপ
maaldip

এশিয়ায় আরেকটি নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপ। ছোট হলেও সৌন্দর্যের দিক থেকে অনেক উপরে এ দ্বীপটি। প্রতিবছর বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে লাখ লাখ পর্যটক মালদ্বীপের সৌন্দর্য উপভোগ করতে ছুটে আসেন। দেশটির উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম মিলে রয়েছে প্রায় আড়াই হাজার ছোট ছোট দ্বীপ। আর এই দ্বীপগুলোকে নিয়ে সৃষ্ট মালদ্বীপ। এখানে রয়েছে অনেকগুলো রিসোর্ট। প্রত্যেকটি রিসোর্ট গড়ে উঠেছে আলাদা আলাদা দ্বীপে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: