স্টার্লিং এ ভ্রাম্যমান বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট চালু

নিউইয়র্ক সিটির ব্রঙ্কস এর বাংলাদেশী অধ্যুষিত স্টার্লিং এলাকায় ভ্রাম্যমান রেষ্টুরেন্ট চালু হয়েছে। পদ্মা বিউটি সেলুনের সামনে বিশাল এক ট্রাকে রয়েছে রেষ্টুরেন্টের ফুল সেটআপ। পোলাও, কোরমা, রেজালা, রোষ্ট, বিরিয়ানি, তেহারি, পরোটা, তন্দুরি, সবজি, সিঙ্গারা,পুরি, পেয়াজু, চা থেকে শুরু করে রেষ্টুরেন্টরে সব আইটেম পাওয়া যাচ্ছে এ এলাকার রেষ্টুরেন্টগুলো থেকে তুলনামুলক সস্তা দামে। ।

এরই মধ্যে ভ্রাম্যমান এ রেষ্টুরেন্টে জড়ো হতে শুরু করেছেন এ এলাকার বাংলাদেশীরা। খাবারের মান, স্বাদ ও দাম কম হওয়ায় শুরুতেই সুনাম ছড়াচ্ছে ভ্রাম্যমান এই রেষ্টুরেন্টটির।

এটি সম্প্রতি চালু হলেও আব্দুল মজিদ দীর্ঘদিন থেকেই নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় কিচেন তৈরী করে নিউইয়র্কে তিনি ক্যাটারিং এর ব্যবসা করছেন দীর্ঘদিন থেকে।

এছাড়া আমেরিকা, ক্যারিবিয়ান কান্ট্রি ও মেক্সিকোসহ বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ইভেন্টে তার ডাক পড়ছে রান্নার জন্য। নিউইয়র্কের বিভিন্ন পিকনিক, বিয়েসহ নানা ইভেন্টে তিনি কিচেন ট্রাক নিয়ে ছুটে চান লাইভ রান্না করোর জন্য।

রান্নায় তার হাতযশ রয়েছে অনেক আগে থেকেই। মানুষকে তাই ভালো মান ও স্বাদের খাবার উপহার দিতে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে চান আব্দুল মজিদ সেকথাই জানালেন প্রবাস নিউজ ডটকমের এই প্রতিবেদককে।

১০ ডলারের খাবার কিনলে এক বোতল পানিও ফ্রি দেয়া হচ্ছে এই ভ্রাম্যমান রেষ্টুরেন্ট থেকে। এছাড়া টাকা কিছু কম থাকলেও হাসিমুখেই তাদের খাবার দিচ্ছেন মজিদ।

তিনি বলছেন, মানুষকে খুশি করাই আমার প্রথম কাজ। কারন তারা আমার ওপর সন্তুষ্ট হলে আল্লাহ আমার ওপর খুশি হবেন। আর তাতেই আমার ব্যবসার বরকত হবে ইনশাআল্লাহ।

ভ্রাম্যমান এই রেষ্টুরেন্টের প্রধান আকর্ষন ফুসকা, চটপট্টি, হালিম আর স্পেশাল মোগলাই। কাষ্টমার অর্ডার দেয়ার পর এগুলো তরতাজা বানিয়ে দেয়া হয় বলে জানান শেফ মজিদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: