সুইজারল্যান্ডে হতে পারে আপনার স্বপ্নের হানিমুন ডেস্টিনেশন

বাসেলে রাইন নদীর তীরে ঘেষে দুজনে ঘুরে বেড়াতে পারেন।মাউন্ট টিউলিসে দুজনে একসাথে  রোমান্স আপনার জীবনে চিরস্বরণীয় হয়ে থাকবে।

একান্তে নিভৃতে একে অপরকে চেনাজানার সুযোগ পাবেন। একে অপরের উঞ্চ সান্যিধ্যে উপভোগের জন্য এরকম শান্ত  পরিবেশ চাই।সবুজ চাদরে মোড়া সুইজারল্যান্ডে বুক চিরে বয়ে চলেছে অসংখ্যা ছোট-বড় নদী। চোখে পড়বে হ্রদ এবং উচু-নিচু পাহাড় পর্বত।চারদিকে ছড়িয়ে আছে কত নাম জানা রঙিন ফুল। মাথা উচু করে দাড়িয়ে আছে পাহাড় চুড়া। বরফে ঢেকে আছে সারাটা পাহাড়। এখানে জীবন যাত্রার গতি মন্তর।

লেকে নৌকায় ভেসে বেড়াতে পারেন। অর্চাডে বসে সদ্য তৈরী ওয়াইন চুমুক দিয়ে একে অপরের কাছাকাছি আসার এই তো সময়।

 

সুইজারল্যান্ডের বৃহত্তম শহর জুরিখ। এখানে দেখতে পারেন সুইচ ন্যাশনাল মিউজিয়াম। নদীর তীর ঘেসে বার্ন সুইজারল্যান্ডের রাজধানী। এখানে অর্কিড ক্রেষ্ট কেনাকাটার জন্য বিখ্যাত। বিলাস সামগ্রীর জন্য সুইজারল্যান্ড পৃথিবীর সেরা।

এখানে ভালমানের অনেক রিসোর্ট আছে। এখানে রাত কাটাতে পারেন এবং প্রানভরে প্রকৃতি উপভোগ করতে পারেন।সুইজারল্যান্ডে সুস্বাদু চিজ তৈরি হয়। স্বাদ নিতে ভূলবেন না কিন্তু। জেনেভায় পায়ে হেটে ঘুরতে পারেন। ভারি ভাল লাগবে।

ঢাকা থেকে টুরিষ্ট ভিসায় সুইজারল্যান্ড যেতে পারেন। বিভিন্ন মানের হোটেল ও রিসোর্ট আছে এখানে। নিরিবিলি পরিবেশে থাকতে চাইলে পছন্দ মতো ভিলাও বুক করতে পারেন।এখানে বিভিন্ন রকম খাবার এর ব্যাবস্থা আছে।গলফিং মোটেল, মিনেরাল স্পা, ইগলু ভিলেজ।

বিশদ জানতে সুইচ টুরিজমের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: