সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০২:৫৪ অপরাহ্ন

সপরিবারে বৃটেনে থাকা আরও কঠোর হলো

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২৪

যারা যুক্তরাজ্যের পারিবারিক ভিসা চান তাদের জন্য ন্যূনতম বেতনের স্তর নির্ধারণ করে দিয়েছে সুনাক সরকার। এর জেরে আরো বেশি লোক সমস্যায় পড়তে পারেন বলে আশঙ্কা রয়েছে। যুক্তরাজ্যে চাকুরিরত স্বামী বা স্ত্রী তার পরিবারের সাথে পুনরায় মিলিত হওয়ার চেষ্টা করার সময় তাদের যে নতুন নিয়মের বেড়াজালে পড়তে হবে তা ভেবেই উদ্বেগ বাড়ছে ৷ ডিসেম্বরে, যুক্তরাজ্যের হোম অফিস, অভিবাসন কমাতে একটি নতুন প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। এই বছরের ১১ এপ্রিল পর্যন্ত, যে কেউ বিদেশ থেকে পরিবারকে আনার জন্য ভিসার আবেদন করলে প্রতি বছর কমপক্ষে তাকে ন্যূনতম মাসিক বেতন ২৯ হাজার পাউন্ড করে পেতে হবে।

একটি বিদেশী সঙ্গী বা স্ত্রী বা সম্ভাব্য সন্তানদের সাথে যুক্তরাজ্যে বসবাস করতে চান এমন একজন বৃটিশ নাগরিক বা সেটেলড বাসিন্দাদের জন্য একটি পারিবারিক ভিসা প্রয়োজন। ফ্যামিলি ভিসা স্কিমের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যে আসা একজন বিদেশী সঙ্গীকে স্পনসর করার জন্য ব্যক্তির প্রয়োজনীয় ন্যূনতম আয় এখন ১৮,৬০০ থেকে বেড়ে ২৯ হাজার পাউন্ড করা হয়েছে। সরকার পর্যায়ক্রমে আগামী বসন্তের মধ্যে এটিকে আরও বাড়িয়ে ৩৮৭০০ পাউন্ড করার পরিকল্পনা করছে। ন্যূনতম আয়ের প্রয়োজনীয়তা পূর্বেই যুক্তরাজ্যে বসবাসকারী সঙ্গীর জন্য প্রযোজ্য। ২০২০ সালে, অভিবাসী ইন্টিগ্রেশন পলিসি ইনডেক্স অনুসারে, পারিবারিক পুনর্মিলন সহজতার করার জন্য যুক্তরাজ্য ৫৬ টি দেশের মধ্যে নীচে থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে, শুধুমাত্র ডেনমার্কের উপরে। ক্যারোলিন কম্বস, যিনি ব্রিস্টলে বসবাস করেন, রিইউনিট ফ্যামিলিজ ইউকে-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা -এটি একটি অলাভজনক সংস্থা যা ভিসা প্রক্রিয়ায় নেভিগেট করা পরিবারগুলিকে সমর্থন করে৷ গ্রুপটি ২০১৭ সালে ফেসবুকে পথ চলা শুরু করেছিলো এবং প্রায় ৪৫০০ সদস্য হয়েছে।

কম্বসের স্বামী ইকুয়েডর থেকে এসেছেন – তাদের প্রথম সন্তানকে স্বাগত জানানোর পরেই তার নিজ দেশে নির্বাসনের মুখোমুখি হয়েছিলেন ।

আট বছর পর, ক্যারোলিনের স্বামী কার্লোস এখনও অনির্দিষ্টকালের ছুটি পাওয়ার প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, যা যুক্তরাজ্যে তার ভবিষ্যত সুরক্ষিত করবে। আরেকটি পরিবার যারা নতুন নিয়ম মেনে চলতে সংগ্রাম করছে তারা হলেন গ্যারি পেপারড এবং তার সঙ্গিনী শায়েন। পেপারড ব্রিস্টলে থাকতেন যখন তিনি শায়েনের সাথে দেখা করেছিলেন। তিনি ব্রাজিলিয়ান এবং যখন তারা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সংযুক্ত হয়েছিল তখন তিনি ব্রাজিলে বসবাস করছিলেন। এই যুগলে একসঙ্গে থাকতে গিয়ে এখন নতুন নিয়মের গেরোয় পড়েছেন। শায়েন ভিজিটর ভিসায় যুক্তরাজ্যে আসেন এবং ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে তাদের বিয়ে হয়। এই দম্পতি ব্রিস্টলে একসাথে থাকার পরিকল্পনা করেছিলেন, কিন্তু পারিবারিক ভিসার জন্য আবেদন করার বিকল্প তাদের কাছে উপলব্ধ ছিল না, কারণ পেপারড পূর্ববর্তী ন্যূনতম আয় ১৮৬০০ পাউন্ডের নীচে উপার্জন করছিলেন।ফলস্বরূপ পেপারড বলেছিলেন যে তিনি ব্রাজিলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যাতে তিনি এবং তার স্ত্রী একসাথে থাকতে পারেন।

সাম্প্রতিক বিবিসি “ইমিগ্রেশন – দ্য ইউকে’স রেকর্ড হাই” এ হাইলাইট করেছে যে , গত বছর সরকার ১.৪৪ মিলিয়ন ভিসা জারি করেছে। তাদের মধ্যে মাত্র ৫.৬% পরিবার-সম্পর্কিত ছিল। জবাবে, হোম অফিসের একজন মুখপাত্র একটি বিবৃতিতে বলেছেন: “যুক্তরাজ্যে অভিবাসনের বর্তমান মাত্রা অনেক বেশি। এ কারণেই সরকার ইউকে আসা অভিবাসীদের সংখ্যা বছরে ৩০০, ০০০ থেকে কমানোর একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। ‘ দক্ষ কর্মীদের জন্য সাধারণ বেতনের সীমার সাথে ন্যূনতম আয়ের প্রয়োজনীয়তা সংযুক্ত করে, এটি নিশ্চিত করা হয়েছে যে অভিবাসন নীতি উচ্চ-মজুরি, উচ্চ-উৎপাদনশীলতা, উচ্চ-দক্ষ অর্থনীতিতে যুক্তরাজ্যের বৃহত্তর উচ্চাকাঙ্ক্ষার সহায়ক।’

সূত্র : বিবিসি

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com