বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৯:১০ অপরাহ্ন
Uncategorized

মেরিনা বে স্যান্ডার্স, সিঙ্গাপুর

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১

বিশে^র ব্যায়বহুল স্থাপনার মধ্যে সিঙ্গাপুরের মেরিনা বে স্যান্ডার্স অন্যতম। তিনটি বিশাল টাওয়ারের উপর জাহাজের মতো এই ভবনটি এবং আশেপাশের কিছু স্থাপনাসহ এটি আসলে একটি রিসোর্ট কমপ্লেক্স।

দূর থেকে দেখতে ছোট মনে হলেও এর ভিতর না ঢোকা পর্যন্ত কল্পনাও করতে পারবেন না কি বিশাল রাজ্য লুকিয়ে আছে এর ভিতরে। এর ভিতরে আবাসিক হোটেল ছাড়াও রয়েছে বিশে^র সব নামিদামি ব্যান্ডের শোরুম ও শপিং মল। ক্যাসিনো, আর্ট এন্ড সাইন্স মিউজিয়াম, আইচ স্কেটিং কোর্ট, ফুড কোর্ট, বার, রেষ্টুরেন্ট এবং সিনেমা কমপ্লেক্সসহ অনেক কিছু।

এছাড়া মেরিনা স্কাই ক্রেপারের সর্বোচ্চ চূড়ায় উঠে দেখা যায় সিঙ্গাপুরের আসাধারন দৃশ্য। তাই সিঙ্গাপুর বেড়াতে এলে পর্যটকদের ভ্রমন তালিকায় থাকে মেরিনা বে।গেট দিয়ে ভিতরে ঢুকলেই চোখে পড়বে দুটি চেকইন এবং চেক আউট কাউন্টার। কাউন্টারে সব সময় ভিড় লেগেই থাকে।

এখানে না থেকেও যে কোন পর্যটক এখানে ঘুরে দেখতে পারেন। সেজন্য কোন টিকেটের প্রয়োজন হয় না। তবে হোটেলের উপরে জাহাজের মতো দেখতে স্যান্ডার্স স্কাই পার্কে উঠতে হলে টিকেট লাগবে। আর এই হোটেলে থাকতে হলে আপনাকে গুনতে হবে প্রতি রাত্রের জন্য ৩৬ হাজার টাকা। বিভিন্ন ধরনের অতিথিদের সেবা দেওয়ার জন্য এখানে আছে আলাদা আলাদা কাউন্টার। তিন নম্বর টাওয়ার থেকে উঠতে হয় ৫৬ তলায় স্কাই পার্ক। টিকেটের মূল্য এ্যাডাল্ট ৩৫ সিঙ্গাপুর ডলার চাইল্ড ১৭ সিঙ্গাপুর ডলার।

আফ্রিকান ক্যাসিনো এ্যান্ড রিসোর্ট কোম্পানি লাসভেগাস কর্পোরেন্ট এই বিলাস বহুল কম্পানিটির মালিক। ২০১০ সালে যখন এটি চালু হয় তখন এটি ছিল বিশে^র সবচেয়ে দামি ক্যাসিনো সম্পত্তি। জমিসহ তখন এর মূল্য ধরা হয়েছিল ৮০০ কোটি সিঙ্গাপুরিয়ান ডলার। এখানে ৫৫ তলা তিনটি হোটেল টাওয়ারে রয়েছে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ২৫০০টি রুম।

টপ টাওয়ার থেকে পুরো সিঙ্গাপুর সিটি দেখা যায়। এর পাশেই গড়ে উঠেছে স্টলের বড় দুটি ডোম। এর একটির নাম ফ্লাওয়ার ফরেস্ট আর অন্যটির নাম ফ্ল্যাওয়ার ডোম। এর পাশে ফুলের মতো কিছু সুপার ট্রি রয়েছে। ইস্পাত আর্টিফেসিয়াল গাছ। প্রতিদিন এখানে চলে আলোর খেলা বা লাইটিং শো তখন এক অদ্ভুত সুন্দর দৃশ্য তৈরী হয়।

এই পুরো জায়গাটির নাম গার্ডেন বাই দ্যা বে। গার্ডেন বাই দ্যা বের পরে দূরে দেখা যায় মেরিনা ব্যারেজ এবং সিঙ্গাপুর পোর্ট। আর বাদিকে তাকালে দেখা যায় সিঙ্গাপুর ফ্ল্যাইয়ার। সবকিছু দেখতে স্বাপ্নের মতো লাগবে। প্রতিদিন সকাল সাড়ে নয়টা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত স্কাইপার্ক দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকে।অবজারভেশন ডেকে একটি ক্যাফে এবং একটি রেষ্টুরেন্ট আছে।

স্কাই পার্কের প্রায় অর্ধেকটি জুড়ে রয়েছে সুইমিং পুল। ভূমি থেকে যার উচ্চতা ৬২৭ ফুট। এই পুলটির পানি ধারন ক্ষমতা ৩,৭৬,৫০০ গ্যালন। হোটেলে অবস্থানকারী অতিথিরা কেবল মাত্র এইা পুলটি ব্যবহার করতে পারে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com