ভূস্বর্গ কাশ্মীরের ইতিহাস এবং যে সব স্থান না দেখলে জিবনে অপূর্ণতা থেকে যাবে

কাশ্মীর, আমাদের পৃথিবীর বেহেশত। দুনিয়াতে খুব কম মানুষই পাওয়া যাবে কাশ্মীরের নাম শুনে নাই বা জানে না। কাশ্মীর এমন এক জায়গা যার নাম শুনলেই মনের মধ্যে আলাদা এক শিহরণ তৈরি করে এবং সেখান যেতে মনের অজান্তেই আকাঙ্ক্ষা তৈরি হয়। আহা, আমাদের এই সুন্দর পৃথিবীতে এমন সুন্দর জায়গাও আছে। মনে হয় যেন সৃষ্টিকর্তা তার সবটুকু দিয়ে কাশ্মীরের অপরূপ সৌন্দর্য তৈরি করেছেন।

নাম শুনলেই সবুজ প্রকৃতির দিকে মন চলে যায়। হৃদয়ে হিল্লোল তুলে মুগ্ধ করা আবেশের। প্রাণে প্রাণে বাজে প্রেরণার সুর। আহ্, কি সুন্দর করে সাজিয়েছেন এ প্রকৃতি। এ ধরা। এ জায়গা। যেন প্রভুর হাতে গড়া সুন্দর, মনোরম আর নয়নজুড়ানো ভুবন ভুলানো দৃশ্য।

কাশ্মীরের প্রকৃতি নিয়ে কত কবি কবিতা লিখেছেন। কত গল্পকার লিখেছেন শত শত পৃষ্ঠার রচনা। সাজিয়ে তুলেছেন মনের মাধুরী মিশিয়ে। ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের লেখাগুলো পড়ে পড়ে কাশ্মীরে যাওয়ার তীব্র আকাঙ্ক্ষা হৃদয়ে বারবার উঁকি দিত। উদ্বেলিত হতো প্রাণ।

ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর অঞ্চল দু’ভাগে ভাগ হয়ে গিয়েছিল ১৯৪৭ সালে উপজাতীয় যোদ্ধাদের এক অভিযান এবং তারপরের সামরিক সংঘাতের মধ্যে দিয়ে ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: