মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ১০:০০ পূর্বাহ্ন

ভিন্নধর্মী রেস্টুরেন্ট যাত্রা বিরতি

  • আপডেট সময় শনিবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২৪

শহুরে জীবনে পরিবার বা বন্ধুবান্ধব নিয়ে কিছুটা আনন্দপূর্ন সময় কাটাতে নগরবাসীরা ভিড় জমায় রেস্টুরেন্টগুলোতে। যান্ত্রিক জীবনের ব্যস্ততার ফাঁকে কিছুটা প্রশান্তি পেতে নগরবাসী চলে যান বিভিন্ন রেস্টুরেন্টগুলোতে। নানান স্বাদের খাবারের সাথে রেস্টুরেন্টগুলোতে থাকে বিনোদনের নানান আয়োজন। আজ আমরা জানব ভিন্নধর্মী এক রেস্টুরেন্ট যাত্রা বিরতির কথা। বনানীর এই রেস্টুরেন্টটি বাংলা সংস্কৃতি চর্চার এক অসাধারণ জায়গা।

লোকসংগীত ও বাঙালী সংস্কৃতিকে ধারণ করে গড়ে উঠা এই রেস্টুরেন্টটি শিল্পমনাদের জন্য চমৎকার একটি স্থান। পরিবার কিংবা বন্ধুদের নিয়ে অথেনটিক নিরামিষ খাবারের সাথে অসাধারণ লোকসংগীত ও লাইভ মিউজিক উপভোগ করতে চলে আসুন যাত্রা বিরতিতে। রাজধানীর বনানীর কামাল আতার্তুক অ্যাভিনিউতে যাত্রা শোরুমের ওপরে গড়ে উঠেছে এ রেস্টুরেন্টটি। গতানুগতিক রেস্টুরেন্টের বাইরে বাঙালী সংস্কৃতি চর্চার দারুন এক জায়গায় পরিণত হয়েছে এটি। শহুরে যান্ত্রিক জীবনের কিছুটা বাঙালীয়ানার ছোঁয়া পেতে সত্যি এক অসাধারণ স্থান যাত্রা বিরতি। যাত্রা বিরতি মূলত একটি ফোক রেস্টুরেন্ট। এখানে নিয়মিত বসে ফোক মিউজিক এর আসর। বিভিন্ন ধরনের মেলা ও অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এখানে। পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় গান, অভিনয় ও কবিতার ওয়ার্কশপ। বাঙালী সংস্কৃতি চর্চা ও প্রকৃ্ত বাঙালী খাবারের স্বাদ দিতে যাত্রা বিরতি তুলনাহীন।

এখানে বসার চেয়ার টেবিল, পরিবেশনের পাত্র, দেয়ালে আকা ছবি, ভেতরের গাছগাছালি, লাইটিং, সবকিছুতেই রয়েছে বাঙালীয়ানার ছোঁয়া। দারুন সুসজ্জিত এ রেস্টুরেন্টির পুরো ইন্টেরিয়রজুড়ে রয়েছে অসাধারণ সব ফোক পেইন্টিং। রেস্টুরেন্টের ভেতরে প্রবেশ করলেই এর রঙিন সাজসজ্জা মন ভালো করে দেয়। হস্তশিল্পের শৈল্পিক ছোঁয়ায় এর প্রতিটি অংশ অলঙ্কিত করা।

রঙিন সব ছবি আর আলোক সজ্জায় বাঙালী সংস্কৃতি ও কৃষ্টির অসাধারণ বহিঃপ্রকাশ সত্যিই মুগ্ধ করার মত। চা, ফুচকা খেতে খেতে এখানে উপভোগ করতে পারবেন লাইভ মিউজিক শো। চমৎকার সব লোকসংগীত উপভোগে সময়টা দারুন কাটবে আপনার। বন্ধু বান্ধব, পরিবার পরিজন নিয়ে সময় কাটানোর জন্যে অসাধারণ একটি জায়গা এটি। প্রতি শুক্রবার “ওপেন মাইক” এবং শনিবার “ইলেক্ট্রো এ্যাক্যুস্টিক সেশন” করে আসছে যাত্রা বিরতি। আমাদের লোকগীতিকে জনপ্রীয় করতে বৃহস্পতিবার আয়োজন করা হয় ফোক ইভিনিং “ভাব”, যেখানে বাংলাদেশের বিভিন্ন ধারার লোকগীতি পরিবেশন করেন। এখানে শুধু গান শোনাই নয় দর্শকরাও গেয়ে ওঠেন মন খুলে। ওপেন মাইকে, যে কেউ গান গাইতে বা বাজাতে, কবিতা আবৃত্তি করতে বা কৌতুক পরিবেশনা করতে পারবেন। সাধারণত ওপেন মাইক অনুষ্ঠানে একজন জনপ্রীয় শিল্পী বা ব্যান্ডও থাকে। অনুষ্ঠান আয়োজনের ছাড়াও এখানে বিভিন্ন ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। গান ছাড়াও নাচ, আবৃত্তি ও অভিনয়ের উপর এসকল ওয়ার্কশপগুলো হয়ে থাকে। এছাড়াও বাচ্চাদের জন্য নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এখানে।

এখানকার খাবারে ভেজিটেরিয়ান খাবারের প্রাধান্য বেশি। সব খাবারই এখানে একদম দেশীয়। অর্গেনিক ও সুস্বাদু নিরামিষ খাবার পরিবেশন করা হয় যাত্রা বিরতিতে। এখানে পাবেন ভাত ও রুটির সাথে অনন্য স্বাদের বিভিন্ন নিরামিষ তরকারী, ভেজিটেবল মোমো, মিনি সামুচা, আলু টিকি, সবজি পিঠা, শাঁক চপ, বিভিন্ন জুস ও ডেজার্ট ( দুধ লাউ, নারিকেলের পুলি পিঠা ও গাজরের হালুয়া)। এছাড়াও রয়েছে চা, ফুসকা, চটপটি। এ খাবারগুলোর দাম ৫০ থেকে ৪৫০ টাকার ভেতরে। তাই শহুরে একঘেঁয়ে জীবন থেকে কিছুটা বিরতি চাইলে আপনিও চলে আসতে পারেন যাত্রা বিরতিতে।

ঠিকানা: ৬০ কামাল আতার্তুক অ্যাভিনিউ, ৩য় তলা, বনানী ১২১২।

ফোন: 01731-819015

খোলা-বন্ধের সময়সূচী: প্রতিদিন সকাল ১১ টা থেকে রাত ১১ টা।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com