পযর্টন কেন্দ্র হবে সোনাদিয়া দ্বীপ

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার সোনাদিয়া দ্বীপকে একটি আন্তর্জাতিক মানের পর্যটন শহর হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এজন্য এই দ্বীপের ৯৮৬৭ একর জমি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষকে (বেজা) বরাদ্দ দিয়েছে ভূমি মন্ত্রনালয়। বেজা সোনাদিয়া দ্বীপে পযর্ট কদের জন্য পর্যটন কেন্দ্র, আবাসিক এলাকা, আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতাল ইত্যাদি গড়ে তোলার জন্য সরকারের কাছ থেকে এই জমি বরাদ্দ নিয়েছে।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে সেখানে একটি অত্যাধুনিক এবং আন্তর্জাতিক মানের পর্যটন শহর গড়ে তোলার পরিকল্পনা আছে সংস্থাটির। সোনাদিয়া দ্বীপকে ঘিরে বিশাল একটি সমুদ্র‣সকত আছে। ফলে কক্সবাজারের চেয়েও সেটি পর্যটকদের আকর্ষনের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন বাংলাদেশের মানুষকে যাতে ভ্রমনের জন্য বিদেশ যেতে না হয়, সেই ব্যবস্থা আমরা করব, পাশাপাশি বাংলাদেশে যাতে বিপুল পরিমান বিদেশী পর্যটক আসে তাও নিশ্চিত করবে সোনাদিয়া, সাবরাং ও নাফ টুরিজম পার্কের মতো পরিকল্পিত পর্যটনগুলো। কক্সবাজার জেলা তথ্য বাতায়ন অনুযায়ী সোনাদিয়া দ্বীপটি কক্সবাজার শহর থেকে সাত কি.মি. উত্তর পশ্চিমে সাগরগর্ভে অবস্থিত। তিন দিকে সমুদ্র কক্সসকত ঘেরা দ্বীপটির আয়তন প্রায় ৯ বর্গ কি.মি.।

\সোনাদিয়া মূলত সাগর তলায় ঢাকা বালিয়াড়ি কেয়া নিসিন্দার ঝোপ, ছোট বড় খাল বিশিষ্ট প্যারাবন। এটি কক্সবাজারের মূল ভুখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন একটি দ্বীপ। এই দ্বীপে ম্যানগ্রোভ বন রয়েছে। একানকার সাগরের পানি কক্সবাজারের মতো ঘোলা নয়, গভীর স্বচ্ছ এবং নীল। এই দ্বীপে প্রচুর লাল কাঁকড়া ও সামুদ্রিক পাখি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: