বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৫০ অপরাহ্ন

জ্যাকসন হাইটসে খলিল বিরিয়ানি

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
নিউইয়র্কে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের প্রাণকেন্দ্র হিসাবে পরিচিত জ্যাকসন হাইটসে যাত্রা শুরু করছে জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান খলিল ফুডসের সহযোগী প্রতিষ্ঠান খলিল বিরিয়ানির পঞ্চম শাখা। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি বুধবার মহান শহীদ দিবসে জ্যাকসন হাইটসের রুজভেল্ট অ্যাভিনিউ সাবওয়ের বিপরীতে (৭৪-১০ ব্রডওয়ে) ব্রডওয়ের ওপর নতুন শাখার যাত্রা শুরু হবে। চমৎকার নান্দনিক সাজসজ্জার এই রেস্টুরেন্টটিতে ৩৫ জনের বসার ব্যবস্থা রয়েছে। জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিটে খলিল বিরিয়ানি খাওয়া-দাওয়ার জন্য একটা আদর্শ পরিবেশ হবে বলে অনেকেই মনে করছেন।
খলিল বিরিয়ানির কর্ণধার ও বিখ্যাত শেফ খলিলুর রহমানের রান্না মানেই রন্ধন শিল্পের জাদু। আর এই জাদু নিয়ে নিউইয়র্কে তিনি গড়ে তুলেছেন খলিল বিরিয়ানি হাউজ। নিউইয়র্কসহ বাংলাদেশি অধ্যুষিত সব শহরেই খলিল বিরিয়ারি সুপরিচিত। বর্তমানে দুটি করে শাখা রয়েছে নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস ও জামাইকায়। প্রত্যেকটি শাখাই ব্যবসা সফল। আর এই সাফল্যের ধারাবাহিকতায় পঞ্চম শাখা হচ্ছে জ্যাকসন হাইটসে।
আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় জ্যাকসন হাইটসে ফিতা কেটে খলিল বিরিয়ানির নতুন শাখার উদ্বোধন হবে। মূলধারার রাজনীতিক ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে।
জনপ্রিয় শেফ খলিলুর রহমান বলেন, জ্যাকসন হাইটস প্রবাসী বাংলাদেশিদের ব্যবসা বাণিজ্য, সাহিত্য সংস্কৃতি ও সভা সমাবেশের প্রাণকেন্দ্র। গোটা আমেরিকার মধ্যে জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশিদের কাছে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। গত চার বছর ধরেই এই জ্যাকসন হাইটসে বাংলাদেশিদের সুস্বাদু, হালাল ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পরিবেশন করতে চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু ভালো একটি জায়গা পাওয়া যাচ্ছিল না। দীর্ঘ অপেক্ষা শেষে ২১ ফেব্রুয়ারি তার দেখা মিলবে আনুষ্ঠানিকভাবে। তিনি আরও বলেন, এখানে বিরিয়ানি ও বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী খাবারের পাশাপাশি থাকবে হালাল মম ও অন্যান্য বিদেশি খাবার। এজন্য ইতিমধ্যেই অভিজ্ঞ নেপালি শেফ নিয়োগ দিয়েছি। এখানে বৈচিত্রময় নানাবিধ হালাল খাবারের ব্যবস্থা থাকবে, যা থেকে গ্রাহকরা তাদের পছন্দের খাবারগুলো বেছে নিতে পারবেন।
তিনি বলেন, নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস, জ্যামাইকা ও জ্যাকসন হাইটসের পর আমরা খুব শিগগির ওজন পার্কে আরো একটি শাখা খোলার প্রস্তুতি নেব। প্রবাসী বাংলাদেশিদের আরো বেশী করে সেবা দিতে চাই। এজন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছি।
রেস্টুরেন্টের নাম খলিল বিরিয়ানি হলেও দেশি মাছ, মাংস, সবজি, সমুচা, শিঙারা, কাবাবসহ বিভিন্ন ধরনের খাবার পাওয়া যায় এখানে।
রেস্টুরেন্টটির কর্ণধার ও বিখ্যাত শেফ খলিলুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণিত শাস্ত্রে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। ছিলেন একজন ব্যাংক কর্মকর্তা। নিউইয়র্কে এসে বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে ওয়েটার হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। পরে শেফের কাজ নেন। নিজে শিখে নেন রান্নার কাজও।
ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে চার বছর মেয়াদি কোর্সে ভর্তি হন খলিলুর রহমান। সনদপত্র পাওয়ার পর নিজে কিছু করার প্রয়াসে নেমে পড়েন রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়। নিজের নামেই রেসিপি তৈরি করেন। রেস্টুরেন্টের নামও রাখেন খলিল বিরিয়ানি। অসাধারণ স্বাদ ও মনোরম পরিবেশে খলিল বিরিয়ানি প্রতিষ্ঠার পর থেকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com