জার্মানির জনসংখ্যার রেকর্ড বৃদ্ধিতে অভিবাসীদের অবদান

২০২২ সালে জার্মানির জনসংখ্যা রেকর্ড পরিমাণে বেড়েছে৷ বছরের শেষে দেশটিতে বসবাসরত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় সাড়ে আট কোটিতে৷

বৃহস্পতিবার জনসংখ্যার হালনাগাদ পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে জার্মানি৷ পরিসংখ্যান বলছে, ২০২২ সালের ডিসেম্বর নাগাদ জার্মানিতে জনসংখ্যা বেড়ে আট কোটি ৪৩ লাখ হয়েছে৷ অর্থাৎ যে কোনো সময়ের চেয়ে দেশটিতে সবচেয়ে বেশি মানুষ বসবাস করছেন, বিবৃতিতে বলেছে জার্মান ফেডারেল স্ট্যাটিসটিক্স অফিস৷

হিসাব বলছে. গত বছর যত মানুষ জার্মানি ছেড়ে গিয়েছেন তার চেয়ে ১৪ লাখ বেশি অভিবাসী পশ্চিম ইউরোপের দেশটিতে প্রবেশ করেছেন৷ ১৯৫০ সালে জার্মানিতে নথিবদ্ধ করার পর থেকে এবারই নিট অভিবাসন হার সর্বোচ্চ হয়েছে৷

ফেডারেল স্ট্যাটিসটিক্স অফিস বলছে, অন্য দেশগুলো থেকেও অভিবাসী আগমন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে৷’’

তবে জার্মানির নীতিনির্ধারকদের জন্য আশঙ্কার বিষয় হলো দেশটিতে মৃত্যুহারের তুলনায় জন্মহার হ্রাস অব্যাহত রয়েছে, যা জনসংখ্যা বৃদ্ধির গতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে৷ ২০২১ সালের শেষের তুলনায় ২০২২ সালের শেষে জনসংখ্যা বেড়েছে ১১ লাখ৷

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর দেশটিতে জন্মহার ব্যাপক বৃদ্ধি হয়৷ ওই সময় জন্ম নেয়াদের ‘শিশু বিস্ফোরণ’ প্রজন্ম হিসেবে অভিহিত করা হয়৷ বর্তমানে এই প্রজন্ম চাকরি থেকে অবসর নিচ্ছে৷ কিন্তু পরবর্তীতে জন্মহার কমে যাওয়ায় তাদের শূন্যস্থান পূরণ করার মতো এখন যথেষ্ট তরুণ জনগোষ্ঠী নেই দেশটিতে৷ বয়স্ক মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে জার্মানিতে প্রতি বছর সাড়ে তিন লাখ কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী কমছে৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, এই অবস্থা চলতে থাকলে ২০৩৫ সাল নাগাদ শ্রমবাজারে ৭০ লাখ কর্মী ঘাটতি থাকবে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: