1. b_f_haque70@yahoo.com : admin2021 :
  2. editor@cholojaai.net : cholo jaai : cholo jaai
উড়োজাহাজে ভ্রমণে করনীয়
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:২৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ঢাকা রিজেন্সিতে পর্যটন উৎসবে যত অফার মিডিয়া সাম্রাজ্য গড়ছিল আলিবাবা, এখন বিক্রি করে দিচ্ছে শেয়ার কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে ভারত-বাংলাদেশ সমুদ্রসীমা বিতর্ক, মহীসোপান নিয়ে বিতর্কের কারণ কী? অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডে মুক্তি পাচ্ছে বহুল প্রতীক্ষিত পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার ‘মিশন এক্সট্রিম’ সম্ভাবনা ও সুযোগে পরিপূর্ণ বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন বাংলাদেশকে স্বাগত জানিয়ে নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক প্রেসিডেন্টের বার্তা বিমানবন্দরে বসলো করোনা পরীক্ষার পিসিআর ল্যাব ‘মিস আর্থ বাংলাদেশ’র মুকুট জিতলেন নাইমা যেভাবে ১ লাখ কোটি টাকার প্রতিষ্ঠান গড়লেন মেলানিয়া-ক্লিফ দম্পতি

উড়োজাহাজে ভ্রমণে করনীয়

চলযাই ডেস্ক :
  • আপডেট সময় বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

করোনাভাইরাসের কারণে  দীর্ঘ লকডাউন শেষে একটু নড়েচড়ে বসেছে দেশগুলো। শর্ত সাপেক্ষে অনেক দেশে শুরু হয়েছে উড়োজাহাজ চলাচল। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই উড়োজাহাজ ভ্রমণ করা যাবে এই সময়ে। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, উড়োজাহাজে সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক কম। তবে উড়োজাহাজে সংক্রমণের ঝুঁকি কেবল সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শ এবং তার সংস্পর্শে আসা কোনো বস্তু। উড়োজাহাজের একই সিট, সিটের হাতল, দরজার হুক ইত্যাদি অনেকেই ব্যবহার করেন। তাই নিরাপদে উড়োজাহাজে যাতায়াত করার ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে সচেতন থাকা প্রয়োজন।

প্রয়োজনীয় জিনিষ

কিছু জিনিস অবশ্যই ভ্রমণের সময় আপনার সাথে বহন করা উচিত। সে তালিকায় একটি হ্যান্ড স্যানিটাইজার, জীবাণুনাশক ওয়াইপস, টিস্যু এবং মাস্ক রাখতে হবে। এই জিনিসগুলো আপনাকে ভাইরাস রোধ করতে সাহায্য করবে।

স্পর্শের আগে সতর্কতা

উড়োজাহাজে ওঠার আগে এটিএম, চেক-ইন মেশিন, এসকেলেটর বা লিফট এবং অন্য যেকোনো ডিভাইস ব্যবহারের সময় সতর্ক থাকা উচিত। অন্যরা যেগুলো স্পর্শ করেছে; সেগুলো ব্যবহার করার সময় গ্লাভস পরে নিন। একইভাবে ফোন এবং ওয়ালেটের মতো নিজের জিনিসগুলো সম্পর্কে সচেতন হোন। সুরক্ষা চেক চলাকালীন এগুলো ব্যাগের মধ্যে না রেখে একটি ব্যাগে রাখুন। ফোনটি অন্তত দিনে দিনে দু’বার জীবাণুনাশক দিয়ে মুছে ফেলা উচিত।

দূরত্ব বজায় রাখুন

সবখানেই প্রযুক্তি এবং অটোমেশনের উপর নির্ভর করার চেষ্টা করুন। মেশিন থেকে বোর্ডিং পাস নেওয়ার পর হাত স্যানিটাইজ করুন। বিমানবন্দরের ভেতরে কেনাকাটার ক্ষেত্রে কোনো কিছু স্পর্শ না করার চেষ্টা করুন। কর্মীদের কাছ থেকে ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখুন। স্পর্শহীন বিকল্প ব্যবহার করে টাকা দেওয়ার চেষ্টা করুন।

জানালা খুঁজে নিন

কোনো উড়োজাহাজে আসন বেছে নেওয়ার সময় উইন্ডোটি বেছে নিন। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, উড়োজাহাজের জীবাণু এড়ানোর সর্বোত্তম উপায় হলো উইন্ডো সিটে বসা। সংক্রমিত যাত্রীরা তাদের পাশের দু’টি সিটের চেয়ে সামনে বা পেছনে দূরে বসে থাকা যাত্রীকে সংক্রমিত করবে না। এছাড়া হাত পরিষ্কার রেখে চোখ, নাক এবং মুখের সংস্পর্শ এড়ানোর মাধ্যমে সংক্রমণের ঝুঁকি দূর করা যায়।

চারপাশ পরিস্কার করা

আসন নেওয়ার সময় আপনার চারপাশের শক্ত জিনিসগুলোর উপর দ্রুত জীবাণুনাশক স্প্রে করুন। কারণ আপনার সিটের পেছনের সিট ফ্ল্যাপ, ট্রে টেবিল, আর্ম রিস্টসগুলোয় সংক্রামক শ্বাস-প্রশ্বাসের ফোঁটা জীবিত থাকতে পারে। এছাড়াও মনে রাখবেন, করোনাভাইরাস আপনাকে এই জাতীয় বস্তু থেকে সরাসরি সংক্রমিত করবে না। যখন আপনি কোনো সংক্রমিত বস্তু স্পর্শ করেন এবং তারপর আপনার মুখ স্পর্শ করেন, তখন ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।

বিমানের পানি নয়

উড়োজাহাজে ট্যাঙ্কগুলো থেকে আনা পানি সব সময় পরিষ্কার না-ও হতে পারে। তাই উড়োজাহাজের দেওয়া পানি পান না করাই ভালো। তার চেয়ে বরং চা বা কফি পান করুন। যা সাধারণত ওই পানি থেকে তৈরি নয়।

অসুস্থ হলে বাড়ি থাকুন

এ মুহূর্তে এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। জ্বর, সর্দি, কাশি, ঠান্ডা লাগার মতো অসুস্থ হলে বাড়িতেই থাকুন। জ্বর পুরোপুরি ভালো না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা উচিত। কেননা ভাইরাসটি সম্পর্কে সবারই সতর্ক থাকা উচিত।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com