হার্ভার্ডে বিনা মূল্যে এমবিএ পড়ার সুযোগ বাংলাদেশিদের

বিশ্বের অন্যতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হার্ভার্ড। সেখানে লেখাপড়া করার সুযোগ সবার মেলে না। তবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইচ্ছা করলেই পড়তে পারবেন যে কেউ। এ জন্য পকেট থেকে খসবে না এক কানাকড়িও। কারণ, আছে অনলাইন কোর্স। এ ছাড়া আছে বৃত্তির সুযোগ। এ বৃত্তির নাম বোস্তানি ফাউন্ডেশন বৃত্তি। ২০২১ সালে এ বৃত্তির আওতায় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএতে পড়তে পারবেন যে কেউ। বিশ্বের অন্য দেশের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আবেদন করতে পারবেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরাও। ২০২১ সালে শরৎ (অটাম) সেশনের জন্য এ বৃত্তি দেওয়া হবে। হার্ভার্ডের এমবিএ বিশ্বের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় শিক্ষার ব্যবসায়িক প্রোগ্রাম। হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল প্রতি দুই বছরে একবার বোস্তানি এমবিএ হার্ভার্ড বৃত্তি দিয়ে থাকে। এ বৃত্তি দুই বছরের কোর্সের জন্য।

আবেদনের যোগ্যতা

বাংলাদেশসহ নানা দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য বোস্তানি ফাউন্ডেশনের এমবিএ বৃত্তির আবেদন উন্মুক্ত। তবে এ জন্য কিছু শর্ত আছে। যেমন আবেদনকারী প্রার্থীকে একাডেমিক পড়াশোনায় ভালো হতে হবে। যে কেউ এ বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন। লেবাননের বংশোদ্ভূত আবেদনকারীরা এ বৃত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। হার্ভার্ড এমবিএ প্রোগ্রাম থেকে ভর্তির অফার পাওয়ার পরে প্রার্থীরা স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

হার্ভার্ডে বিনা মূল্যে এমবিএ পড়ার সুযোগ বাংলাদেশিদের

ছবি: সংগৃহীত

বৃত্তির সুযোগ–সুবিধা

এ বৃত্তি পেলে শিক্ষার ফি বাবদ ২ বছরে মিলবে ১ লাখ ২ হাজার ২০০ মার্কিন ডলার। প্রতিবছর ৫১ হাজার ১০০ ডলার আর্থিক সহায়তা পাবেন যে কেউ এ বৃত্তি পেলে।

আবেদনের পদ্ধতি কীভাবে

হার্ভার্ডের বোস্তানি ফাউন্ডেশনের এমবিএ বৃত্তির আবেদন করতে আগ্রহী প্রার্থীদের একটি সিভি ছবিসহ পাঠাতে হবে। এ ছাড়া জিএমএটি স্কোর এবং যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা, সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি স্বীকৃতিপত্রের চিঠি admissions@boustany-foundation.org-তে পাঠাতে হবে। সব সিভি বাছাই করে তালিকা করা হবে। সংক্ষিপ্ত তালিকায় মনোনীত প্রার্থীকে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সাক্ষাত্কারের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে।

আবেদনের শেষ সময়

এ বছরের ৩১ মে পর্যন্ত আগ্রহী শিক্ষার্থীরা এ বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন।
সুইজারল্যান্ড ও মোনাকোভিত্তিক বোস্তানি ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু হয় ২০০৬ সালে। নাবিল বোস্তানি ও তাঁর ছেলে ফাদির হাত ধরে এ ফাউন্ডেশনের পথচলা শুরু। এর আগে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ১৯৯৭ সাল থেকে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি দেওয়া হচ্ছিল। এরপর ২০০৬ সালে ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু হয়। সেই থেকে বোস্তানি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: