কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাসের প্রক্রিয়া সহজ করা হয়েছে

কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাসের প্রক্রিয়া সহজ করা হয়েছে। ২০২০ সালের মধ্যে দেশটি বছরে ১০ লাখ দক্ষ-অদক্ষ শ্রমিক নেবে। তারা কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ পাবেন। দেশটির ইমিগ্রেশন মন্ত্রী আহমেদ হোসাইন সম্প্রতি সুখবরটি দিয়েছেন। স্কিলড, ট্রেড স্কিলডসহ অন্যান্য ক্যাটাগরিতে এ সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

কমপ্রিহেনসিভ র‌্যাংকিং সিস্টেমে (সিআরএস) পয়েন্টের নিম্নমুখী স্কোরের প্রবণতা দেখে ধারণা করা হচ্ছে, চলতি বছর সবচেয়ে কম পয়েন্ট দিয়েও কানাডায় অভিবাসন মর্যাদা পাওয়া যাবে। আর এ কারণেই চলতি বছর ঘন ঘন লটারির সম্ভাবনা রয়েছে বলে অভিবাসন-সংশ্নিষ্টরা মনে করছেন। অভিবাসন আইনজীবীরা বলেছেন, সঠিকভাবে আবেদন করতে পারলে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশিও কানাডায় নাগরিকত্ব পাবেন। এক্সপ্রেস এন্ট্রি প্রোগ্রামে এ আবেদন করতে হবে। তবে সবার আগে জানতে হবে, কানাডায় নাগরিকত্ব পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যোগ্যতা আছে কি-না।

কানাডা সরকার সবসময়ই ‘আগে আসলে আগে পাবেন’ ভিত্তিতে অভিবাসনের কার্যক্রম পরিচালনা করে। বিল সি-৬ অনুযায়ী, কানাডার নাগরিকত্বের আবেদন করতে পাঁচ বছরের মধ্যে অন্তত তিন বছর বসবাস করতে হবে। আগে তা ছিল ছয় বছরের মধ্যে চার বছর। এ ছাড়া কানাডায় যারা অস্থায়ী মর্যাদায় তথা ওয়ার্ক অথবা স্টাডি পারমিটে ছিলেন, তারাও কানাডায় বসবাসের সময়টুকু তিন বছর মেয়াদের একটি অংশ হিসেবে গণনা করতে সক্ষম হবেন।

খবর এনআরবি নিউজের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: