মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৫:২৬ অপরাহ্ন
Uncategorized

ইমিগ্রেশন আবেদনে সামান্য ভুলে অসামান্য ক্ষতি

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১

এসাইলাম আবেদন, ফ্যামেলি পিটিশানসমূহ তথ্য I-130, I-485, I-765, F-1 এবং অন্যান্য ভিসা পিটিশনসমূহে সামান্য সমস্যা বা ভুলের কারণে আপনি ভয়ানক ক্ষতির সম্মুখিন হতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ পরিবারের সদস্যদের নাম না দেয়া বা ভুল নাম ও জন্মতারিখ সন্নিবেশিতকরণ, নিজ ঠিকানা ভুল প্রদান, পরিবারের সদস্য তথা ভাইবোনদের নাম ইচ্ছাকৃতভাবে বসিয়ে দেয়ার ফলে পরবর্তীতে উক্ত আবেদন গৃহীত এবং Approve হলে আবেদনকারী নিজ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের জন্য আবেদনকালীন সময়ে সমূহ আইনগত জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে।

সুতরাং I-589 এসাইলাম আবেদন, I-130 ফ্যামেলি পিটিশনসমূহ, I-485 গ্রিনকার্ড এপ্লিশেনে আপনার পরিবার এবং নিজের জন্মতারিখ, নাম, পিতামাতার নাম, একাধিক বিবাহ হলে সব স্বামী/স্ত্রীর নাম এবং জন্মতারিখ, বিবাহ ও ডির্ভোসের তারিখ যথাযথভাবে সন্নিবেশিত করা অত্যাবশ্যক। একাধিক ভাইবোনের নাম ও জন্মতারিখ সন্নিবেশন করার সময় মনে রাখতে হবে সবার জন্মতারিখের মধ্যে একটি নির্দিষ্ট Gap বা সময়ের ব্যবধান আছে কি না। এমনও দেখা গেছে, আবেদনকারী তার কয়েকজন ভাইবোনের নাম সন্নিবেশন করার সময় দুই ভাইয়ের জন্মতারিখ একই দিন অথবা দুইজনের জন্ম তারিখের ব্যবধান অতি কম, এমন কি ২/৩ মাসের ব্যবধানে! এমতাবস্থায় বর্তমান এবং পরবর্তী আবেদনসমূহে জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে। নামের সাথে অযথা মি./ মিসেস, মিস ইত্যাদি যদি আপনার প্রকৃত নাম না হয়, অযথা এগুলোর ব্যবহার আবেদন প্রসেসিংয়ে জটিলতার সৃষ্টি করতে পারে। এছাড়া মি./মাওলানা/হাজী ইত্যাদি নামের পূর্বে ব্যবহার এবং নামের শেষে নতুন করে টাইটেল ব্যবহার করা, যা আপনার পাসপোর্ট কিংবা বার্থ সার্টিফিকেটের সাথে সংঘর্ষিক, তা না করাই বাঞ্ছনীয়।

যারা I-130 আবেদন Approve হওয়ার পর DS-260 ফাইল করবেন, তারা অবশ্যই I-130-তে দেয়া তথ্যের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ রেখে DS-260 ফাইল করবেন, এতে করে ভিসা ইস্যুর জটিলতা এড়াতে পারবেন।

DS-260 ফরমটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। এতে সন্নিবেশিত তথ্যের উপর ভিত্তি করেই ভিসা প্রসেসিং করা হয। যারা I-130 ফরমটি ইতিমধ্যে Misplace বা হারিয়ে ফেলেছেন, তারা G-639 ফাইল করে উক্ত I-130 ফরমটি কপি Request করতে পারেন।
সব ফরম পূরণকালে আবেদনকারী এবং তাদের আত্মীয়-স্বজনদের সব Biografic তথ্যাবলি মিলিয়ে বসাতে হবে। যেকানে একাধিক ভাইবোনের আবেদনে প্রত্যেকের বার্থ সার্টিফিকেটেই পিতামাতার নাম হুবহু এক হতে হবে। একই মায়ের ও পিতার সন্তান হয়েও পরস্পরের পিতামাতার নাম ভিন্ন বা ভিন্নরূপে লেখা থাকা আবেদন বিলম্বের এবং নাকচ হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা থাকে।

লেখক মোহাম্মদ এন মজুমদার

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

ভ্রমন সম্পর্কিত সকল নিউজ এবং সব ধরনের তথ্য সবার আগে পেতে, আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদেরকে ফলো করে রাখুন।

© All rights reserved © 2020 cholojaai.net
Theme Customized By ThemesBazar.Com